কার্বন ডাইঅক্সাইড নিঃসরণ আটকানোর সেরা প্রযুক্তি উদ্ভাবনকারীকে ৮৪৮ কোটি টাকা দেবেন ইলন মাস্ক

247

পরিবেশ দুষণের জন্য দায়ী কার্বন ডাইঅক্সাইড নিঃসরণ আটকানোর সেরা প্রযুক্তি উদ্ভাবনকারীকে ১০ কোটি মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি মূদ্রায় ৮৪৮ কোটি টাকা) পুরস্কার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন বিশ্বের বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক।

Advertisement

বৃহস্পতিবার এক টুইটবার্তায় এ ঘোষণা দেন তিনি।

পৃথিবীর উষ্ণতা নির্গমনের মাত্রা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পেতে থাকায় তা নিয়ন্ত্রণে রাখতে নানাভাবে কার্বন নিঃসরণ আটকানোর প্রযুক্তির উদ্ভাবনে ব্যস্ত বিজ্ঞানীরা। কিন্তু এখনও পর্যন্ত এ বিষয়ে যুতসই প্রযুক্তি উদ্ভাবন করা হচ্ছে না।

উল্লেখ্য, কার্বন নিঃসরণ আটকানোর প্রযুক্তির বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, বাতাসে কোথায় কতটুকু কার্বন রয়েছে তা জানাবে এই প্রযুক্তি। যেকোনো স্থানের ও যেকোনো মুহূর্তের কার্বন নিঃসরণের পরিপূর্ণ তথ্য দিয়ে তা আটকাতে সহায়তা করবে।

কিন্তু গত কয়েক বছরের চেষ্টার পরও কার্বন নিঃসরণ আটকানোর এমন কোনো প্রযুক্তি এখনো উদ্ভাবন করা যায়নি বলে জানিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সি।

অথচ পরিবেশ রক্ষায় এই প্রযুক্তির প্রয়োজনীয়তা অপরিমেয়। দিন দিন কার্বন নিঃসরণের হার বেড়েই যাচ্ছে।

বিষয়টি ভাবনায় রেখে এই প্রযুক্তির উদ্ভাবনে পুরস্কার ঘোষণা করলেন ইলন মাস্ক। এ বিষয়ে পরবর্তী সপ্তাহে বিস্তারিত জানাবেন বলে টুইট করেন তিনি।

শুধু ইলনই নয়; কার্বন নিঃসরণ কমানো প্রযুক্তির উদ্ভাবনে অগ্রাধিকার দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনেও।

Am donating $100M towards a prize for best carbon capture technology

— Elon Musk (@elonmusk) January 21, 2021
প্রসঙ্গত, ইলেকট্রিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলা ও প্রাইভেট মহাকাশযান কোম্পানি স্পেস-এক্সের স্বত্বাধিকারী ইলন মাস্ক। ২০১৭ সাল থেকে শীর্ষস্থান ধরে রাখা অ্যামাজন প্রধান জেফ বেজোসকে চলতি বছরের শুরুতে পেছনে ফেলে শীর্ষ ধনকুবের হন ইলন মাস্ক। ইলন মাস্কের বর্তমান নিট আর্থিক সম্পদ ১৮ হাজার ৫০০ কোটি ডলারে ওঠানামা করছে।

তবে অসীম সম্পদ মানুষের জন্যই ব্যয় করবেন বলে জানিয়েছেন ইলন মাস্ক। এক টুইটবার্তায় তিনি লিখেছেন, আমার অর্ধেক অর্থ পৃথিবীর সমস্যার জন্য তোলা রয়েছে, বাকি অর্ধেক ব্যয় হবে মঙ্গলে স্বনির্ভর শহর প্রতিষ্ঠার সহায়তায়, যা জীবনের গতিপ্রবাহ অব্যাহত রাখবে, যদি পৃথিবীতে ডাইনোসোরের উল্কা আঘাত হানে বা তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের মতো কিছু করে আমরা নিজেদের ধ্বংস করে ফেলি।

Advertisement