‘অধিকারবোধের চেতনাকে শাণিত করেছিল একুশে ফেব্রুয়ারি’

173

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক ডাঃ শাহাদাত হোসেন বলেছেন, অধিকার আদায় ও অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী হতে ভাষা শহীদগণ আমাদের প্রেরণার উৎস। মাতৃভাষার জন্য জীবন উৎসর্গ করে তারা আত্মত্যাগের যে গৌরবদীপ্ত দৃষ্টান্তস্থাপন করে গেছেন তার ফলাফল হয়েছে সুদূরপ্রসারী। পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রাম তা আমাদেরকে অনুপ্রাণিত করেছে। তাদের আত্মত্যাগের ধারাবাহিকতায় গণতান্ত্রিক ও স্বাধিকার আন্দোলনের পথ বেয়ে আমরা অবতীর্ণ হয়েছি স্বাধীনতা যুদ্ধে। প্রতিষ্ঠিত করেছি স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ। অধিকারবোধের চেতনাকে শাণিত করেছিল মহান একুশে ফেব্রুয়ারি। সেই চেতনা নস্যাৎ করে একদলীয় শাসনের জগদ্দল পাথর আজ জনগণের কাঁধের ওপর চাপানো হয়েছে।

Advertisement

তিনি আজ রবিবার (২১ ফেব্রুয়ারী) সকালে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে এক জমায়েতে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ২০১৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর মধ্যরাতের কারচুপির নির্বাচনে ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে জনগণকে প্রতারিত করা হয়েছে। গণতন্ত্রকে সমাহিত করে এই দুঃশাসন দীর্ঘায়িত করতে অবৈধ শক্তির জোরে সাজানো মিথ্যা মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা দিয়ে বন্দি করে রাখা হয়েছিল প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য। এখনো তাকে কারাগার থেকে নিজ গৃহে রাখা হলেও কার্যত তিনি গৃহবন্দি। তার সব মৌলিক অধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে।একুশের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে খুব দ্রুত বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে আমরা পরিপূর্ণ মুক্ত করবোই ইনশাল্লাহ।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর বলেন, মহান একুশের চেতনার ধারাবাহিকতায় মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ শুরু হয়েছে। পাকিস্থানি শাসকগোষ্ঠীর নিপীড়ন নির্যাতনের বিরুদ্ধে গর্জে উঠেছিল সে সময়ের তরুণ যুবকরা। পুলিশি হামলা, মামলা জব্বার বরকতদের দমাতে পারেনি। তাদের চোখে মুখে ছিল বাংলা মায়ের ভাষা রক্ষা আর গণতন্ত্র সমুন্নত রাখার দীপ্ত অঙ্গীকার। ৫২ ভাষা আন্দোলনের সময় যে পরিস্থিতি তৈরি করেছিল পাক শাসকেরা, আজকের দিনেও সে পরিস্থিতি তৈরি করেছে বাকশালী প্রেতাত্মা আওয়ামী সরকার। সারাদেশে হত্যা, খুন, গুম অব্যাহত রেখে শাসন ব্যবস্থা থেকে শুরু করে রাষ্ট্রের সবকটি অঙ্গকে তাদের অবৈধ ক্ষমতাকে টিকে রাখার সিড়ি হিসাবে ব্যবহার করছে। এ সরকার মামলাবাজ, মাফিয়া বাজ সরকার। বর্তমান সরকার জনগনের সরকার নয়, এ সরকার মাফিয়াদের সরকার। একুশের চেতনাকে ধারণ করে দেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। জব্বার বরকতদের দেখানো পথে আমাদের দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য প্রতিজ্ঞা করে জনগণের অধিকার ফিরিয়ে আনতে হবে।
তিনি ভাষা আন্দোলনের বীর শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান। তাদের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন।

পুস্পস্তবক অর্পণ কালে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আলহাজ্ব এম এ আজিজ, এস এম সাইফুল আলম, এস কে খোদা তোতন, কাজী বেলাল উদ্দীন, ইয়াসিন চৌধুরী লিটন, ইসকান্দার মির্জা, আবদুল মান্নান, আহবায়ক কমিটির সদস্য শামসুল আলম, হারুন জামান, নিয়াজ মোঃ খান,আর ইউ চৌধুরী শাহীন, আহমেদুল আলম চৌধুরী রাসেল, আবুল হাসেম, আনোয়ার হোসেন লিপু, গাজী মোঃ সিরাজ উল্লাহ, মনজুর আলম মঞ্জু, কামরুল ইসলাম, কোতোয়ালী থানা বিএনপির সভাপতি মনজুর রহমান চৌধুরী সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জাকির হোসেন, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এইচ এম রাশেম খান, সাধারণ সম্পাদ জেলী চৌধুরী, তাঁতী দলের আহবায়ক মনিরুজ্জমান টিটু, ছাত্রদলের আহবায়ক সাইফুল আলম সদস্য সচিব শরিফুল ইসলাম তুহীন,ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আকতার খান, আলাউদ্দিন আলী নূর, খাজা আলাউদ্দিন,খন্দকার নরুল ইসলাম, হাজী মোঃ মহসিন, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবুল বসর, আবু সাঈদ হারুন, আশ্রাফ খান, জসিম মিয়া প্রমুখ।

Advertisement