অটোরিকশা চালক ও ৩ যাত্রীকে পিষে মারল শাওন পরিবহনের বাস

227

ডেস্ক নিউজ : তিন যাত্রী নিয়ে গন্তব্যে যাচ্ছিল সিএনজি অটোরিকশা চালক। তখনও কি তারা জানত এটাই ছিল তাদের অন্তিম যাত্রা? সড়কেই তাদের পিষে মারল শাওন পরিবহনের একটি বাস।

Advertisement

শুক্রবার সকালে ঢাকা ছেড়ে আসা গাইবান্ধাগামী বাসটি ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের বগুড়ার শাজাহানপুরের মাঝিড়া এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অটো রিকশাটিকে চাপা দিলে সেটি দুমড়ে-মুচড়ে গিয়ে মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটে।

খবর পেয়ে বগুড়ায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে হাইওয়ে পুলিশের সহায়তায় হতাহতদের উদ্ধার করেন। ঘটনাস্থলে তিনজন মারা যায় এবং আহত একজনকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এ সময় অন্তত আধাঘণ্টা যান চলাচল ব্যাহত হয়।

নিহতদের মধ্যে তাৎক্ষনিক দুজনের পরিচয় মিলেছে। তারা হলেন, বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার ডেমাজানি গ্রামের ক্ষিতিশ চন্দ্র দাসের ছেলে কালীদাস (৭২) ও ধুনট উপজেলার আনারপুর গ্রামের জামাল উদ্দিনের ছেলে শাহ জামাল (৩৪)। নিহত সিএনজিচালক ও অপর যাত্রীর পরিচয় পাওয়া যায়নি।

পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সূত্র জানায়, শুক্রবার ভোরে বগুড়ার শেরপুর থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালক তিন যাত্রী নিয়ে বগুড়া শহরের দিকে রওনা হন। সকাল ৬টার দিকে তিনি শাজাহানপুর উপজেলার মাঝিড়া এলাকায় ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে পৌঁছেন।

এ সময় ঢাকা ছেড়ে আসা গাইবান্ধাগামী শাওন পরিবহনের একটি বাসের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অটোরিকশাকে পেছন থেকে ধাক্কা দেন। এতে অটোটি দুমড়ে-মুচড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলেই যাত্রী কালীদাস, শাহ জামালসহ তিনজন নিহত হন। অপরজনকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান।

বাস চাপায় অটো রিকশা চালক ও তিন যাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যুর তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন বগুড়া ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার বজলুর রশিদ।

Advertisement