কারো হুইসেলে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়নি : চসিক মেয়র

182

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে জাতির পিতার ৫০টি কর্মময় জীবন নিয়ে বঙ্গবন্ধু মানে বাংলাদেশ মিডিয়া টেম্পার্ড গ্লাসড শিল্পকর্ম এর উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ রেজাউল করিম চৌধুরী।

Advertisement

উদ্বোধন কালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, যে বাংলাদেশ ছিল একসময় অবহেলিত দারিদ্র পীড়িত, যে বাংলাদেশকে নিয়ে পশ্চিমা-বিশ্ব উপহাস করত তলাবিহীন ঝুড়ি বলে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী, সুদক্ষ, সৃজনশীল ও সাহসী নেতৃত্বের ফলে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের ইতিহাসে উন্নয়নের রোল মডেল ও সম্ভাবনার অপার বিষ্ময়কর একটি উদীয়মান অর্থনীতির দেশ। বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের জনগণকে রাজনৈতিক মু্িক্ত প্রদান করেন আর তাঁর সুযোগ্যকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদক্ষ ও বলিষ্ট নেতৃত্বে ক্ষুধা ও দারিদ্রকে জয় করে দেশের জনগণকে অর্থনৈতিক মুক্তিপ্রদান করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

মেয়র বলেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনা মোকাবেলায় বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত কার্যকর পদক্ষেপের কারণে বিশ্বের উন্নত দেশের চেয়ে এই সংকট ভালোভাবে নিয়ন্ত্রন করতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, নতুন প্রজন্মের কাছে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জামাল খানের মত বিভিন্ন এলাকায় তুলে ধরা হলে আগামীর নেতৃত্ব বাংলাদেশকে আরো সুচারুভাবে গড়ে তুলতে সক্ষম হবে। তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধে চেতনা, আদর্শ, মূল্যবোধ ও বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ বাস্তবায়নে সকলকে স্ব স্ব অবস্থান থেকে দ্বায়িত্ব পালন করার আহ্বান জানান।

প্রসঙ্গক্রমে মেয়র বলেন, কারো হুইসেলের মাধ্যমে দেশ স্বাধীন হয়নি। প্রিয় মাতৃভূমির জন্য স্বাধীনতার এরকম একটি চুড়ান্ত ঘোষণায় পৌঁছাতে দীর্ঘ ২৪টি বছর বাঙালী জাতিকে সুনির্দিষ্ট কর্মসূচির ভিত্তিতে নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনের মধ্য দিয়ে লক্ষ্য স্থির করে, ধাপে ধাপে জাতীয় মুক্তি সংগ্রাম পরিচালনা করে, জনগণের ম্যান্ডেট নিয়ে শাসকগোষ্টির সকল ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে, ফাঁসির মঞ্চকে উপেক্ষা করে প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হয়েছে যা একদিনে হয়নি। ৭ই মার্চের ভাষনে তিনি বিচক্ষনতার সঙ্গে বক্তব্য পেশ করেছিলেন। ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রাম’। বস্তুত এটাই ছিল বাঙালীর জন্য স্বাধীনতার ঘোষণা।

মেয়র আগামী প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও আদর্শকে ধারণ করে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে এবং করোনার দ্বিতীয়ঢেউ-এ সকলকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি ও জনসমাগম এড়িয়ে চলার জন্য নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় জামাল খানস্থ খাস্তগীর স্কুলের প্রাচীরে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে জাতির পিতার ৫০টি কর্মময় জীবন নিয়ে ‘বঙ্গবন্ধু মানে বাংলাদেশ’ মিডিয়া টেম্পার্ড গ্লাসড শিল্পকর্ম এর উদ্বোধনকালে মেয়র এসব কথা বলেন।

জামাল খান ওয়ার্ড কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমনের সভাপতিত্বে উক্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাবেক মেয়র ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ.জ.ম নাসির উদ্দিন, চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রদীপ চক্রবর্ত্তী, মহানগর আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক চন্দন ধর, সদস্য বেলাল আহমদ, জামশেদুল আলম,দৈনিক আজাদীর সিনিয়র রিপোর্টার হাসান আকবর, জামাল খান ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হাশেম বাবুল, সহ-সভাপতি হাজী সাহাবুদ্দীন, জাহাঙ্গীর আলম,সাধারণ সম্পাদক মিথুন বড়ুয়া, বাবুল দেব, রঞ্জনরশ্মি বড়ুয়া, কাঞ্চন চৌধুরী, ওয়াহিদুল আলম শিমুল, ছাত্রনেতা সাব্বির সাদিক ও সৈকত দাশ।

আমন্ত্রিত অতিথি সাবেক মেয়র ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ.জ.ম নাসির উদ্দিন বলেন, নতুন প্রজন্ম আগামী দিনের চালিকা শক্তি। সে শক্তি যাতে ভুল পথে পরিচালিত না হয় সেদিকে লক্ষ রেখে আজ বঙ্গবন্ধুর কর্মময় জীবনের ৫০টি শিল্পকর্ম প্রদর্শন একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। আমি আশা করি নগরীর অন্যান্য কাউন্সিলররা স্বাধীনতা ও বঙ্গবন্ধুর আন্দোলনের ইতিহাস প্রত্যেক এলাকার প্রাচীরগুলোতে তুলে ধরলে ভবিষ্যৎ শিক্ষার্থীরা অনেক কিছু জানবে এবং শিখবে।

চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রদীপ চক্রবর্ত্তী বলেন, ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য এ ধরণের উদ্যোগ অনুকরণীয় ও অনুশীলনীয়। এই শিল্পকর্ম ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে উজ্জীবিত করবে। বঙ্গবন্ধুর ৫০টি কর্মময় জীবন নিয়ে মিডিয়া টেম্পার্ড গ্লাসড শিল্পকর্মে সার্বিক সহযোগীতা করেন দৈনিক আজাদী ও ফোর এইচ গ্রুপ।

Advertisement