৬ এপ্রিল থেকে চসিকের ৫০ শয্যা বিশিষ্ট আইসোলেশন সেন্টার চালু

183

কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাবে সংক্রমণ হার দ্রুত বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে আক্রান্তদের সেবা প্রদান কল্পে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনায় নগরীর লালদিঘী পাড়স্থ চসিক লাইব্রেরী ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ভবনে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট একটি আইসোলেশন সেন্টার স্থাপনের ঘোষণা দিয়েছেন মেয়র মোঃ রেজাউল করিম চৌধুরী।

Advertisement

তিনি আজ বিকাল ৩ টায় নিজে ঐ ভবন পরিদর্শন করে প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরীকে খুব দ্রুততার সাথে আইসোলেশান সেন্টার প্রস্তুতের নির্দেশ দেন।

আগামী ৬ এপ্রিল এই আইসোলেশন সেন্টারের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হবে। এখানে চিকিৎসাধীনরা বিনামূল্যে চিকিৎসা, ওষুধপত্র-অক্সিজেন সার্পোট, খাবারসহ সব ধরণের প্রয়োজনীয় সুরক্ষা সেবা পাবেন। এছাড়া রোগী পরিবহন ও স্থানান্তরের জন্য সার্বক্ষণিক এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস থাকবে।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ সুমন তালুকদারের তত্ত্বাবধানে এই আইসোলেশন সেন্টারে চসিকের চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা নিয়োজিত থাকবেন। এছাড়া আক্রান্ত রোগীর অবস্থা জটিলতর হলে তা সারিয়ে তুলতে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের শরণাপন্ন হয়ে বিশেষ পরামর্শ গ্রহণ করা হবে এবং টেলি মেডিসিন সেবারও ব্যবস্থা থাকবে।

মেয়র আরো জানান, আইসোলেশন সেন্টার স্থাপনের পাশাপাশি নগরীতে সাধারণ জনগণের সুরক্ষায় বিনামূল্যে মাস্ক, সাবান ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণের কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

এছাড়াও নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে নির্বাচিত কাউন্সিলরগণের তত্বাবধানে কোভিড সুরক্ষায় সচেতনতামূলক মাইকিং করা হচ্ছে ও লিফলেট বিতরণ করা হচ্ছে। মাইকিং ও লিফলেটের মাধ্যমে স্বাস্থ্যবিধি মানা ও সরকারের ১৮ দফা নির্দেশনা পালন ও অনুসরণে বাধ্যবাধকতা সম্পর্কে নগরবাসীকে সর্তক করে দেওয়া হচ্ছে।

Advertisement