এশিয়া কাপের ফাইনালে বাংলাদেশের মুকুল

15

এবারের এশিয়া কাপে বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্স ভুলে যেতে পারলেই বাঁচেন ক্রিকেট ভক্তরা। গ্রুপ পর্বের কোন ম্যাচেই সাকিব আল হাসানের দল পায়নি জয়ের দেখা, তার পথ ধরে সুপার ফোরে খেলার সুযোগ হাতছাড়া হয় টাইগারদের। অবশ্য এশিয়া কাপে ক্রিকেটাররা ব্যাট-বলে দাপট দেখাতে না পারলেও ঠিকই ক্রিকেট নজর কেড়েছেন বাংলাদেশের আম্পায়ার মাসুদুর রহমান মুকুল। গ্রুপ পর্বে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে নজরকাড়া আম্পায়ারিংয়ের পুরস্কার মুকুল সুযোগ পেয়ে গেলেন। এশিয়া কাপ ফাইনালে আম্পায়ারিং করবেন তিনি। যার ফলে ফাইনালে না থেকেও থাকছে বাংলাদেশ।

Advertisement

এশিয়ার সবচেয়ে বড় টুর্নামেন্ট এশিয়া কাপ। আর সেই কাপের ফাইনাল ম্যাচে মাঠের আম্পায়ারিংয়ের মত দায়িত্বে থাকছেন বাংলাদেশের আম্পায়ার মুকুল। যদিও এই দায়িত্বকে মোটেও চাপ হিসেবে দেখছেন না তিনি। বরং চ্যালেঞ্জ নিচ্ছেন ভালো করার, পাশাপাশি বেশ রোমাঞ্চিত এই টাইগার আম্পায়ার।

ফাইনালের আগের দিন আজ শনিবার এমনটাই জানালেন তিনি। মুকুল বলেন, ‘রোমাঞ্চিত অবশ্যই, আসলে চাপ তেমন নেই। বলা যায় চাপটা আমি নিচ্ছি না, বরং বড় এই চ্যালেঞ্জটা গ্রহণ করছি। কারণ বাংলাদেশের আম্পায়ারদের জন্য এমন সুযোগ কখনো এর আগে এসেছে কিনা আমি জানি না। এমন বড় মঞ্চের ফাইনালে যদি আমি ভালো করতে পারি তাহলে পরবর্তীতে আমাদের দেশের আম্পায়াদের ভবিষ্যতে ভালো অবস্থানে নিয়ে যাবে। এটাই আপাতত আমার কাছে চ্যালেঞ্জ।’

এশিয়া কাপের পূর্ববর্তী ম্যাচের মতো ফাইনাল ম্যাচেও নিজের দায়িত্বের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চান মুকুল। এ নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি ভালো করলে পরবর্তীতে বাংলাদেশের আম্পায়ারদের জন্য পথটা আরো সহজ হবে। বাকি ম্যাচগুলোর মত আমি ফাইনালেও ধারাবাহিকতা বজায় রাখার চেষ্টা করব।’

বাংলাদেশ দল এবারের এশিয়া কাপে ফাইনাল ওঠার অনেক আগেই বিদায় নিয়েছে। এরপরও ফাইনালে থাকছে বাংলাদেশ। এই আম্পায়ার বলছেন তারা যখন এমন দায়িত্বে থাকেন মাঠে, সে সময় তাদের নামের সঙ্গেও বাংলাদেশের নাম, পতাকা দুটোই যুক্ত থাকে। সুতরাং ভালো করার দায়িত্বটা আরো বেড়ে যায় তখন।

এ বিষয়ে ৪৭ বছর বয়সী মুকুল বলেন, ‘সত্যি কথা বলতে আমরা যখন বাইরে আম্পায়ারিং করতে যাই, তখন আমরাও বাংলাদেশের পতাকা বহন করি। এখানে আমার ভালো করার আরো একটি চ্যালেঞ্জ হলো, আমাদের নামের পাশে কিন্তু বাংলাদেশের নামও যুক্ত থাকে। দোয়া করবেন যেনো ফাইনালটাও ভালোভাবে পালন করতে পারি।’

১১ সেপ্টেম্বর রোববার ফাইনালে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হবে পাকিস্তান। রাত ৮ টায় দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এশিয়া কাপ ক্রিকেটের ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।

Advertisement