বেনজেমার হাতে ব্যালন ডি’অর

23

লিওনেল মেসি-ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর যুগ শেষ হয়েছে। করিম বেনজেমার যুগও তো শেষ! শেষের আগে মৌসুমের সেরা ফুটবলারের পুরস্কার ব্যালন ডি’অর জিতেছেন ৩৫ বছর বয়সী রিয়াল মাদ্রিদের ফ্রান্স স্ট্রাইকার করিম বেনজেমা।

Advertisement

গত মৌসুমে বেনজেমা লস ব্লাঙ্কোসদের জার্সিতে দুর্দান্ত খেলেছেন। লিগে এবং চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গোল করার ভার দুর্দান্তভাবে সামলেছেন। লা লিগা ও ইউরোপ সেরার শিরোপা জয়ের পথে মৌসুমে সব মিলিয়ে ৪৬ ম্যাচে করেছেন ৪৪ গোল।

এর মধ্যে লিগে ৩২ ম্যাচে ২৭ গোল উঠেছে তার নামের পাশে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ফ্রান্সম্যান ছিলেন বিধ্বংসী। শেষ ষোলো ও কোয়ার্টার ফাইনালে হ্যাটট্রিক করেছেন। ১২ ম্যাচে গোল করেছেন ১৫টি। বেনজেমার ব্যালন ডি’অরের পথে বহু বছর পর শক্ত কোন প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন না। তার পুরস্কার জয় নিয়ে ছিল না সংশয়।

ব্যালন ডি’অরের উৎসব বার্সেলোনার ঘরেও। মেয়েদের ফুটবলের সেরা হিসেবে বার্সার অ্যালেক্সিয়া পুতেল্লাস ব্যালন ডি’অর জিতেছেন। টানা দু’বার এই সম্মান জয়ের কীর্তি গড়লেন তিনি। এছাড়া সেরা গোলরক্ষকের পুরস্কার উঠেছে রিয়ালের থিবো কর্তোয়ার হাতে। মৌসুমের সেরা স্ট্রাইকার হিসেবে জার্ড মুলার পুরস্কার জিতেছেন রবার্ট লেভানডভস্কি।

ব্যালন ডি’অরের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে থেকে শেষ করেছেন লিভারপুল থেকে বায়ার্ন মিউনিখে যোগ দেওয়া সাদিও মানে। গত মৌসুমে রেডসদের হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনাল খেলেছেন। লিগে দ্বিতীয় হয়েছে তার দল। মানে ৫১ ম্যাচে করেন ২৩ গোল। এছাড়া ম্যানসিটির লিগ জয়ী কেডিন ডি ব্রুইনি তিনে শেষ করেছেন।

চতুর্থ অবস্থান অর্জন করেছেন লেভা। পঞ্চম হয়েছে মো সালাহ এবং ষষ্ঠ হয়েছেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। গত মৌসুম পিএসজি হয়ে ভালো যায়নি লিও মেসির। তিনি ব্যালন ডি’অরের শর্টলিস্টে জায়গা পাননি। তবে রোনালদো ২০তম অবস্থানে থেকে শেষ করেছেন। মৌসুমের সেরা ক্লাবের পুরস্কার জিতেছে ‌ম্যানসিটি।

Advertisement