চট্টগ্রাম বন্দরে ভিড়েছে বড় জাহাজ ‘কমন এটলাস’

17

চট্টগ্রাম বন্দরে ভিড়েছে ‘কমন এটলাস’ নামের বড় জাহাজ । চট্টগ্রাম বন্দর প্রতিষ্ঠার ১৩৫ বছর পর ১০ মিটার গভীরতা ও ২০০ মিটার দৈর্ঘ্যের বড় জাহাজ এ প্রথম নোঙর করেছে। এর ফলে বড় জাহাজ ভেড়ানোর সক্ষমতা অর্জন করেছে চট্টগ্রাম বন্দর।বন্দর কর্তৃপক্ষের বড় জাহাজ ভিড়ানোর এই উদ্যোগ দেশের অর্থনীতিসহ আমদানি–রপ্তানি বাণিজ্যে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

Advertisement

আজ সোমবার দুপুরে বেলুন উড়িয়ে চট্টগ্রাম বন্দরের সিসিটি (চট্টগ্রাম কন্টেইনার টার্মিনাল)-এর ১ নম্বর জেটিতে ভিড়ানো হয় ১০ মিটার দৈর্ঘ্যের ‘কমন এটলাস’ নামের কার্গো জাহাজটি। পরে এর কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। এর আগে তিনি চট্টগ্রাম বন্দরের ভাণ্ডার ভবন এলাকায় নবনির্মিত ভবন উদ্বোধন করেন

বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম শাহজাহানের সভাপতিত্বে এ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন, বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল, যুক্তরাজ্য ভিত্তিক হাইড্রোলিক সংস্থা এইচআর ওয়েলিংফোর্ডের প্রতিনিধি ড. মনজুরুল কাদের,বাংলাদেশ শিপিং এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সৈয়দ মো. আরিফ ও চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বক্তব্য রাখেন।

চট্টগ্রাম বন্দর সংশ্লিষ্টরা জানায়, মার্শাল আইল্যান্ডসের পতাকাবাহী ‘কমন এটলাস’ নামের কার্গো জাহাজটি মেঘনা গ্রুপের আমদানি করা ৬০ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন চিনি নিয়ে ব্রাজিলের সন্তোস বন্দর থেকে গত ১০ জানুয়ারি চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙ্গরে পৌঁছায়। চট্টগ্রাম বন্দরে এতদিন যে ধরনের জাহাজ ভিড়ানো হতো তা মাঝারি আকৃতির। ১৯০ মিটার লম্বা বা ৯.৫ মিটার ড্রাফটের জাহাজে ২২শ থেকে ২৬শ টিইউএএস কন্টেনার বোঝাই করা যায়। মাত্র আধা মিটার ড্রাফট বৃদ্ধি এবং ১০ মিটার ল্যান্থ বৃদ্ধি করে ১০ মিটার ড্রাফট এবং ২০০শ মিটার ল্যান্থের জাহাজে ৩৮শ টিইইউএস পর্যন্ত কন্টেনার বোঝাই করা যায়। ১০ মিটার ল্যান্থ বাড়ার কারণে গড়ে ১ হাজার কন্টেনার বাড়তি পণ্য বোঝাই করার সুযোগ তৈরি করবে।

দুইশ মিটার লম্বা ও ১০ মিটার ড্রাফটের জাহাজকে ‘বড়’ জাহাজ বিবেচনা করা হয়। চট্টগাম বন্দরে আজ থেকে ১০ মিটার ড্রাফট এবং ২শ মিটার ল্যান্থের জাহাজ ভিড়বে। যেখানে খোলা পণ্যবাহী জাহাজে বর্তমানের তুলনায় গড়ে ১০ হাজার টনের বেশি খোলা পণ্য এবং গড়ে ১ হাজার টিইইউএস কন্টেনার বেশি পরিবহন করা সম্ভব হবে।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব মো. ওমর ফারুক বলেন, বড় জাহাজ ভিড়ানোর কার্যক্রম শুরু করছি। শুরুতে নিউমুরিং কন্টেনার টার্মিনাল, চিটাগাং কন্টেনার টার্মিনাল এবং ১০, ১১ ও ১২ নম্বর জেটিতে ১০ মিটার ড্রাফট এবং ২শ মিটার লম্বা বড় জাহাজ ভিড়ানোর কার্যক্রম শুরু হবে, যা দেশের কন্টেনার হ্যান্ডলিংয়ে ইতিহাসে নতুন মাত্রা যোগ করবে।

Advertisement